লেখনী 3

লেখনী

লেখনী
স্বাস্থ্য এর পক্ষে ক্ষতিকর ……
ভালোবাসার মানুষের ভালোবাসার দাম বোঝো।

এইভাবেই হোক প্রতিটা ‘ ভালবাসা’ , যেখানে একে অপরের প্রতি যত্ন শীল, সবসময় পাশে থেকে শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক সেই জিনিস তার কাছ থেকে নিয়ে ছুঁড়ে ফেলে দেয় এবং সেই সঙ্গী ও রাগ না করে বরং এতে তার ভালো হবে ভেবে তাকে কাছে টেনে নেয় 

💖
💖

 please no smoking , no overloaded drinking 

🤝🏻
লেখনী: এই যে তোমরা ধূমপান , মদ পান এমনকি খৈনী , দোক্তা র নেশা করো আর ভাবো যে এই সব নেশা করলে নিজেকে হিরোলিজম , স্মার্ট দেখানো হয় তা এককথায় ভুল , আসলে এইসব নেশা করলে নিজের পরিবার এর থেকে দূরে সরে যাও ।

আর অনেকেই আছো তোমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করো মা বাবা ছাড়া আপন কেউ নয় , কিন্তু তোমাদের অনেকেই জানো না শুধু মা বাবা কে সারাজীবন সাথে রাখলে বা তাদের বিপদে পাশে থাকলে ভালবাসা হয় না বরং নিজেকে ও সুস্থ রেখে চলতে হবে কারন তুমি যদি সুস্থ থাকো তা তোমাদের মা বাবার কাছে সবথেকে আনন্দের ব‍্যাপার হয় ।

আর তোমরাও জানো এই সব নেশা (মদ , সিগারেট) শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর তো সেটা জেনেবুঝে খাওয়াটা বোকামী র অশিক্ষিত এর কাজ ।

লেখনী : হ‍্যাঁ , তোমরা বলবে – এক পেগ বা একটান মারলে কোনো ক্ষতি হবে না , তাহলে তোমাদের বলি – এই জিনিস গুলো এমন যে তুমি এক টান বা এক পেগ খেয়ে থাকতে পারবে না বরং আসতে আসতে এটা অতিরিক্ত পর্যায়ে চলে যায় এবং তাতে শরীর পুরোদমে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে আর এর পরিণাম তোমাদের পরিবারের ওপর পড়ে ।

যদি তোমাদের নিজেকে হিরোলিজম বা স্মার্ট দেখাতেই মন হয় তাহলে সৎ পথে যেকোনো কাজ করে রোজগার করে পরিবার কে চিন্তা মুক্ত রেখো , সাথে আর নেশা করতে হয় তাহলে গাছ লাগানোর নেশা করো কারন এতে তোমার বা পরিবারের কারোর ক্ষতি হবে না বরং পুরো পরিবেশ টা সুস্থ থাকবে এবং যার মধ্যে তোমরাও সুস্থ থাকবে , এছাড়াও সামাজিক কাজের ও নেশা করতে পারো , এতে ও কারোর ক্ষতি না হয়ে বরং ভালোই হবে ।

লেখনী : আর একটা কথা – এইসব কথাগুলো হাস‍্যকর ভাবে না নিয়ে বরং বুদ্ধিদীপ্ত ভাবে ভেবে দেখো কোনটা ঠিক ।।